Home / অর্থনীতি / ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমে বিনিয়োগে লাগবে ই-টিআইএন

ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমে বিনিয়োগে লাগবে ই-টিআইএন

ডাকঘর সঞ্চয় ব্যাংকে বিনিয়োগ করতে ই-টিআইএন (ইলেকট্রনিক ট্যাক্স আইডেন্টিফিকেশন নম্বর) প্রয়োজন হবে। আগামী ১৭ই মার্চ থেকে এটা কার্যকর হবে। তবে ই-টিআইএন সনদ ছাড়াই ১ লাখ ৯৯ হাজার ৯৯৯ টাকা পর্যন্ত নগদ টাকা সঞ্চয় ব্যাংকে রাখা যাবে। ২ লাখ টাকার বেশি হলে অবশ্যই ব্যাংক চেকের মাধ্যমে পরিশোধ করার পাশাপশি ই-টিআইএন সনদ জমা দিতে হবে। দিতে হবে সঞ্চয়কারীর ব্যাংক হিসাব নম্বর ও মোবাইল নম্বর।For Postal Deposit Needed E- TIN

অন্যদিকে, ডাকঘর সঞ্চয় ব্যাংকের কোনো স্কিমে অর্থ বিনিয়োগ করলে বিনিয়োগকারীরা আগের মতো মেয়াদ শেষে বর্ধিত সুদে মুনাফা তুলতে পারবেন। কালো টাকা এবং অতিরিক্ত বিনিয়োগ বন্ধে ডাকঘর সঞ্চয় ব্যাংকে অনলাইন (অটোমেশন) পদ্ধতি চালু হয়েছে। এই পদ্ধতির কারণে স্কিমে এ সব পরিবর্তন আসবে বলে জানিয়েছেন, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

গত বুধবার অর্থ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ‘জাতীয় সঞ্চয় স্কিম অনলাইন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের নতুন মডিউল উদ্বোধন করেন তিনি। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হলেও ইন্টারনাল কিছু কাজ বাকি থাকায় এর কার্যক্রম আগামী ১৭ই মার্চ থেকে সারা দেশের প্রধান ডাকঘরগুলোতে শুরু হবে। পাশাপাশি এদিন থেকেই ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমে আগের সুদহার বহাল করা হবে।

প্রসঙ্গত, এর আগে গত ১৩ই ফেব্রুয়ারি অর্থ মন্ত্রণালয়ের অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমে সুদহার প্রায় অর্ধেক হ্রাস করে একটি পরিপত্র জারি করে। ওই পরিপত্র অনুযায়ী সুদের হার কমেছে ডাকঘরের সঞ্চয় স্কিমের মেয়াদি হিসাব ও সাধারণ হিসাবে। সাধারণ হিসাবের ক্ষেত্রে সুদের হার সাড়ে ৭ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে। আর তিন বছর মেয়াদি ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমে সুদের হার ৬ শতাংশ, যা এতদিন ১১.২৮ শতাংশ ছিল। মেয়াদপূর্তির আগে ভাঙানোর ক্ষেত্রে এক বছরের জন্য সুদ ৫ শতাংশ, আগে যা ছিল ১০.২০ শতাংশ। দুই বছরের ক্ষেত্রে তা ৫.৫ শতাংশ, আগে যা ছিল ১০.৭০ শতাংশ।

ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমে সুদহার অর্ধেক করায় সংসদের ভেতরে ও বাইরে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়। সমালোচনার মুখে ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমে সুদ হারের বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করার আশ্বাস দেন অর্থমন্ত্রী। সেই আশ্বাসের ভিত্তিতে অর্থমন্ত্রী বলেন, ১৭ই মার্চের মধ্যে ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমে সুদের হার আগের মতো ১১.২৮ শতাংশ হবে।

জানা গেছে, জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে এলেই তার পরিচয় থেকেই সব তথ্য নিয়ে মুহূর্তেই হিসাব খোলা যাবে। পরিচয়পত্রধারী ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমে বিনিয়োগ করতে পারবে। একজন এ ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ করতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে ই-টিআইএন সনদও জমা দিতে হবে। দিতে হবে সঞ্চয়কারীর ব্যাংক হিসাব নম্বর ও মোবাইল নম্বর।

চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি এবং পাশাপাশি সকল চাকরির প্রস্তুতি প্রকাশ করা হয়। এছাড়া দিনের ব্রেকিং নিউজ সবার আগে পেতে আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন:

শালিখা নিউজ

About admin

Check Also

Bank Asia Ltd

ব্যাংক এশিয়া লিমিটেড চালু করলো মানিগ্রাম রেমিট্যান্স পেমেন্ট সেবা

ব্যাংক এশিয়া লিমিটেড রেমিটেন্স পরিবারের সাথে যুক্ত মানিগ্রাম রেমিট্যান্স পেমেন্ট সেবা। এখন থেকে দেশের ব্যাংক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *