Breaking News
Home / শিক্ষা / অবশেষে করোনায় পেছাচ্ছে এইচএসসি পরীক্ষা

অবশেষে করোনায় পেছাচ্ছে এইচএসসি পরীক্ষা

সারাদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি এবং গত বুধবার এই রোগে আক্রান্ত একজনের মৃত্যু হওয়ায় পূর্ব ঘোষিত রুটিন অনুযায়ী আগামী ১ এপ্রিল থেকে উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষা পেছানোর দাবি অধিক যুক্তিসংগত হচ্ছে। সরকারি ঘোষণা অনুযায়ী ৩১ মার্চ পর্যন্ত সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ।HSC Exam 2020

জানা যায়, সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা আয়োজন করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় গঠিত জাতীয় আইনশৃঙ্খলা কমিটির বুধবার সভা ডেকেও তা স্থগিত করেছে। পরীক্ষা উপলক্ষে নির্ধারিত সংবাদ সম্মেলনও স্থগিত করা হয়েছে। এর আগে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের অধীন কেন্দ্র সচিবদের সভাও স্থগিত করা হয়। সব মিলিয়ে পরস্থিতি পর্যাবেক্ষণ করে আগামী সপ্তাহের মধ্যে পরীক্ষা স্থগিত করার ঘোষণা আসার সম্ভাবনার কথা দৈনিক শিক্ষাকে জানিয়েছে একাধিক সূত্র।

একাধিক সূত্রমতে, পরীক্ষা পেছানোর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আগামী সোমবার বা মঙ্গলবার সবাইকে জানাতে পারে সরকার।

পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের দাবি, একটি ক্লাসের ৩০-৪০ জন শিক্ষার্থীকে পাঠদান করানো হয়। আর পরীক্ষার হলে অন্তত ৭০-৮০ জনকে এক রুমে বসানো হয়। পরীক্ষার কক্ষে শিক্ষক, প্রশাসনের লোকজন দায়িত্ব পালন করেন। পরীক্ষার কেন্দ্রের বাইরে পুলিশ প্রশাসনসহ সাধারণ মানুষও ভিড় করেন। পরীক্ষার্থীদের নিজ কলেজ থেকে দূরের কলেজ পরীক্ষার কেন্দ্র নির্ধারণ করা হয়। এসব কারণে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। পরীক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে পরীক্ষা স্থগিত করার দাবি জানিয়েছেন তারা।

এ ব্যাপারে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর জিয়াউক হক বুধবার রাতে দৈনিক শিক্ষাকে বলেন, পরীক্ষা পেছানোর ব্যাপারে এখন পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের দাবি, আইইডিসিআর ঘোষণার পর পরীক্ষায় বসতে যাওয়া ১১ লাখের বেশি পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের মধ্যে নির্ধারিত তারিখে পরীক্ষা নিয়ে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। এর আগে করোনাভাইরাসের কারণে পরীক্ষা শুরুর মাত্র ১৫ দিন আগে গত সোমবার সারাদেশের সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও কোচিং সেন্টার বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হলেও এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত না করায় পরীক্ষার্থীরা বিপাকে পড়েছেন। বুধবার করোনাভাইরাসে একজনের মৃতু্য ঘোষণার পর বাসা থেকেও বের হতে ভয় পাচ্ছেন।

অভিভাবকদের দাবির মুখে স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা করলেও শিক্ষার্থীদের ঘরে থাকা নিশ্চিত করা যায়নি। তাই গতকাল বুধবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে পুলিশ ও সিভিল প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে বলা হয়েছে, যাতে শিক্ষার্থীরা ঘরে থাকে।

গত সোমবার এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনে বলেছিলেন, আমরা এখনই এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেইনি। কাছাকাছি সময় গিয়ে সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে তখন সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। তবে এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলেও শিক্ষার্থীদের নিরাপদ দূরত্বে রাখতে এক বেঞ্চ পরপর সিট প্লান করা হবে।

চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি এবং পাশাপাশি সকল চাকরির প্রস্তুতি প্রকাশ করা হয়। এছাড়া দিনের ব্রেকিং নিউজ সবার আগে পেতে আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন:

শালিখা নিউজ

About admin

Check Also

School will be closed since Eid

প্রাথমিকসহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি ঈদ পর্যন্ত!

দেশে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে অঘোষিত লকডাউনের মেয়াদ বাড়ল আরও তিন দিন। …

One comment

  1. এক বেন্স পরপর পরীক্ষা দেওয়া আমাদের পক্ষে খুবই অসম্ভব কারণ এটা কোন বছর হয় নাই আর এইভাবে পরীক্ষা দেওয়া পরীক্ষা দিতে খুবই অসম্ভব হয়ে পড়বে যার কারণে করুণা ভাইরাসের কারণে এটা করা হচ্ছে শুধু রুমের মধ্যে করোনা ভাইরাস ছড়ায় না সকল পরীক্ষার্থী যদি পরীক্ষা দিয়ে বাইরে অংশগ্রহণ করে সেখান থেকেও তো কোন ভাইরাস হতে পারে তাহলে কেন এক ব্রেঞ্চ পরপর পরীক্ষা নেওয়া হবে আমাদের সকল শিক্ষার্থী পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে যে যেহেতু করুণা ভাইরাস দিন দিন বেড়েই চলছে ।
    যার কারণে আমাদের এইভাবে পরীক্ষা দেওয়া খুবই অসম্ভব হয়ে পড়বে সবচেয়ে ভালো হয় এইচএসসি পরীক্ষা ডেট পিছিয়ে দেওয়ার দিলে ভালো হবে সবাই সুস্থ সম্মতভাবে এইচএসসি পরীক্ষার অংশগ্রহণ করতে পারবে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *